দেশে ফিরতে চান দাউদের জানি দুশমন ছোটা রাজন

রাতারাতি  মতবদল ছোটা রাজনের। দেশেই ফিরতে চায় দাউদের এই জানি দুশমন। তাকে দেশে ফিরিয়ে আনতে বালি পৌছল ভারতীয়  গোয়েন্দাদের বিশেষ দল।

Updated By: Oct 29, 2015, 07:36 PM IST
দেশে ফিরতে চান  দাউদের জানি দুশমন ছোটা রাজন

ব্যুরো: রাতারাতি  মতবদল ছোটা রাজনের। দেশেই ফিরতে চায় দাউদের এই জানি দুশমন। তাকে দেশে ফিরিয়ে আনতে বালি পৌছল ভারতীয়  গোয়েন্দাদের বিশেষ দল।

ডি কোম্পানির হাতে খুন হওয়ার আশঙ্কায় বুধবার পর্যন্ত দেশে ফিরতে চায়নি  রাজন। কিন্তু রাত পোহাতেই মতবদল। সূত্রের খবর, ভারতীয় গোয়েন্দাদের কাছে নিরাপত্তার গ্যারান্টি পেয়েই দেশে ফিরতে রাজি মুম্বই আন্ডারওয়ার্ল্ডের নানা। রাজনকে হেফাজতে পেতে বালি পৌছল ভারতীয় গোয়েন্দাদের বিশেষ দল। দলে রয়েছেন সিবিআই-এর যুগ্ম অধিকর্তা পদমর্যাদার এক অফিসার। রয়েছেন মুম্বই পুলিসের এক যুগ্ম কমিশনার এবং আইবি-র এক শীর্ষ কর্তা।

ইতিমধ্যেই ছোটা রাজনের অপরাধের তালিকা তৈরি।
মুম্বই পুলিসের রেকর্ড-
রাজনের বিরুদ্ধে মোট ৭৫টি মামলা রয়েছে।
২৫টিই খুনের মামলা।  নব্বইয়ে দশকের শেষে দাউদ-ছোটা রাজনের গ্যাং ওয়ারেই এই খুনোখুনি। বেশিরভাগ মামলাই মহারাষ্ট্র কন্ট্রোল অফ অরগানাইজড ক্রাইম
আইনের মকোকা আইনের আওতায়

রাজন-সাম্রাজ্য
রাজনের সম্পত্তির পরিমাণ প্রায় ৫ হাজার কোটি টাকা। তার অর্ধেকই মুম্বইও শহরতলিতে নির্মাণ ব্যবসায় বিনিয়োগ করা।
নেপালে একটি হাসপাতাল ছাড়াও মালয়েশিয়ায় হোটেল ও রিসর্ট রয়েছে ।
জিম্বাবোয়েতে রাজনের হিরের ব্যবসা। সিঙ্গাপুরেও ব্যবসা রয়েছে । তবে শুধু অপরাধের তালিকা পেশ করাই নয়, বালি থেকে ফেরাতে  ডিএনএ প্রোফাইলিং করে রাজনের পরিচয় নিশ্চিত করাও জরুরি। ইন্দোনেশিয়ার সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক চুক্তি অনুযায়ী, গ্রেফতারের ২০ দিনের মধ্যে অপরাধীকে ফিরিয়ে আনতে হবে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফে এই সপ্তাহেই  রাজনকে দেশে ফেরানোর চেষ্টা চলছে বলে জানা গেছে।

আজ অবশ্য ফের মতবদল করেন দাউদের জানি দুশমন। আজ তিনি বলেন তিনি বলেন ভারতেই ফিরতে চান  আন্ডারওয়র্ল্ড ডন । ইন্দোনেশিয়ার বালির পুলিস সূত্রে খবর, রাজন জানিয়েছেন, কোনওভাবেই আত্মসমর্পণ নয় বরং গ্রেফতারই হয়েছেন তিনি। এর পাশাপাশি ভারতে ফেরার ইচ্ছেও প্রকাশ করেছেন তিনি। গত পঁচিশে অক্টোবর ইন্দোনেশনিয়ার বালি বিমানবন্দর থেকে ছোটা রাজনকে গ্রেফতার করে পুলিস। অস্ট্রেলিয়ার সিডনি থেকে  বালিতে এসেছিল ছোটা রাজন। পরে অস্ট্রেলিয়া পুলিসের তথ্যের ভিত্তিতেই গ্রেফতার করা হয় ছোটা রাজনকে।