জনতার সঙ্গে ছলনা করে কেউ পার পাবে না, কর্ণাটক উপ-নির্বাচনের ফল নিয়ে কংগ্রেসকে আক্রমণ মোদীর

তিনি বলেন, কর্ণাটক উপ-নির্বাচনের ফল প্রকাশিত হয়েছে। আর তা থেকে নির্ধারিত হবে সেখানকার সরকারের ভবিষ্যৎ। প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই ফলে তিনটি বার্তা রয়েছে। এক, 'দেশের জনতা স্থির ও স্থায়ী সরকার চায়।' 

Updated By: Dec 9, 2019, 03:57 PM IST
জনতার সঙ্গে ছলনা করে কেউ পার পাবে না, কর্ণাটক উপ-নির্বাচনের ফল নিয়ে কংগ্রেসকে আক্রমণ মোদীর

নিজস্ব প্রতিবেদন: কর্ণাটক বিধানসভা উপ-নির্বাচনের ফল প্রকাশ হতেই ফের একবার কংগ্রেসকে বিঁধলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বললেন, পিছনের দরজা দিয়ে যারা সরকার গড়ে জনতা সুযোগ পেলেই তাদের শিক্ষা দেয়। 

পুরোদমে চলছে ঝাড়খণ্ড বিধানসভা নির্বাচনের প্রচার। প্রথম ২ পর্বের পর তৃতীয় পর্বের প্রচারে ঝড় তুলেছে রাজনৈতিক দলগুলি। আর বিজেপির প্রচারের প্রধান দায়িত্ব কাঁধে নিয়েছেন খোদ প্রধানমন্ত্রী মোদী। সোমবারও সেরাজ্যে একাধিক সভা করেন তিনি। বোকারোয় এক জনসভা থেকে কর্ণাটক বিধানসভা উপ-নির্বাচনের ফলের উল্লেখ করে তিনি কংগ্রেস-সহ বিরোধীদের চরম আক্রমণ করেন। 

তিনি বলেন, কর্ণাটক উপ-নির্বাচনের ফল প্রকাশিত হয়েছে। আর তা থেকে নির্ধারিত হবে সেখানকার সরকারের ভবিষ্যৎ। প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই ফলে তিনটি বার্তা রয়েছে। এক, 'দেশের জনতা স্থির ও স্থায়ী সরকার চায়।' 

'দুই, কংগ্রেস ও তার যে সব সহযোগী পিছনের দরজা দিয়ে সরকার গড়ার স্বপ্ন দেখে, যারা জনাদেশের সঙ্গে প্রতারণা করে, যারা জনতাকে অপমান করে, জনতা তখন মুখ বন্ধ রাখলেও প্রথম সুযোগেই তাদের জবাব দেয়। শুধু জবাবই দেয় না তাদের ধুয়ে মুছে সাফ করে দেয়।'  

'তিন, স্থির সরকার গড়তে ও উন্নয়নের জন্য শুধুমাত্র ভারতীয় জনতা পার্টির ওপর আস্থা রাখে জনগণ'  

'কোনও NRC হবে না', সংসদে অমিতের বিল পেশের দিনই কেন্দ্রকে পাল্টা চ্যালেঞ্জ মমতার

এদিন, ঝাড়খণ্ডের জনতাকে কংগ্রেস ও তার সহযোগী দলগুলি থেকে সাবধান হতে বলেন মোদী। বলেন, এরা কোনও দিন শুধরাবে না। কংগ্রেস ও তার সহযোগীরা জনতার সঙ্গে ছলনা করতে চায়। ঝাড়খণ্ডকে ফের অস্থিরতার দিকে ঠেলে দিতে চায় তারা। 

বলে রাখি, গত ৫ ডিসেম্বর ছিল কর্ণাটক বিধানসভা উপ-নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। সোমবার সেখানে চলছে ভোটগণনা। সেরাজ্যের ১৪টি আসনের মধ্যে ১২টিতেই জয়ের পথে বিজেপি। কংগ্রেস পেয়েছে মাত্র ২টি আসন। জেডিএস তো খাতাই খুলতে পারেনি। 

কর্ণাটকে সরকার বাঁচাতে বিজেপির দরকার ছিল মাত্র ৬টি আসন। ১২টি আসনে জয়লাভের পর সেরাজ্যে বিজেপির বিধায়ক সংখ্যা দাঁড়াল ১১৭। 

বলে রাখি,