চেন্নাইয়ে জাদেজাকে লক্ষ্য করে উড়ে এল জুতো!

আগামী দিনে চিপক স্টেডিয়ামে খেলা বন্ধ করার হুমকিও দিয়ে রেখেছে বেশ কিছু ছোট দল। 

Updated By: Apr 11, 2018, 03:19 PM IST
চেন্নাইয়ে জাদেজাকে লক্ষ্য করে উড়ে এল জুতো!
দর্শকাসনে থাকা আন্দোলনকারীদের ছোড়া জুতো হাতে ফাফ ডু প্লেসিস।

নিজস্ব প্রতিবেদন: কলকাতা জয় করেও চেন্নাইয়ে কাঁটা হয়ে থাকল কাবেরী ইস্যু। ধোনির ছেলেরা জিতল বটে, তবে চিপক স্টেডিয়ামে লেখা হল 'কালো ইতিহাস'। যে ঘটনা এর আগে কখনও ঘটেনি, মঙ্গলবার রাতে ঘটল সেটাই। এবারের আইপিএলের প্রথম হোম ম্যাচেই দর্শকাসনে থাকা আন্দোলনকারীদের ক্ষোভের জুতো ধেয়ে এল চেন্নাই দলের সুপারস্টার রবীন্দ্র জাদেজার অভিমুখে। অল্পের জন্য রক্ষা পেলেও, এই ঘটনায় মোটেই খুশি নয় ধোনি ব্রিগেড। 

আরও পড়ুন- শামির থেকে মাসিক ১০ লাখ টাকা খোরপোশ দাবি হাসিনের

কাবেরী জলবন্টন ইস্যুর সমাধান না হওয়া পর্যন্ত চিপক স্টেডিয়ামে চেন্নাই দলের খেলা বন্ধ করা হোক। বয়কট করা হোক আইপিএল। এই দাবিই করেছে কাবেরী ইস্যুতে আন্দোলনরত তামিলের জাতীয়তাবাদী দল 'নাম তামিলার কাচ্চি'। তাঁদের দাবি, কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের গড়িমসির কারণেই এখনও পর্যন্ত ঝুলে রয়েছে কাবেরী ইস্যু। রাজনৈতিক মহলের একাংশ মনে করছে, কর্ণাটক ভোটের আগে কোনওভাবেই এই 'সমস্যা'র ফয়সলা হবে না। যার কিছুটা আন্দাজ করতে পেরেই আরও বড় আন্দোলনের পথে এগোচ্ছে তামিলের জাতীয়তাবাদী দল-সহ আরও বেশ কিছু ছোট সংগঠন। আগামী দিনে চিপক স্টেডিয়ামে খেলা বন্ধ করার হুমকিও দিয়ে রেখেছে বেশ কিছু ছোট দল। 

আরও পড়ুন- কমনওয়েলথ গেমসে ভারতের আরও একটি পদক, সোনা এনে দিলেন শুটার শ্রেয়সী

যদিও চেন্নাই দলের ম্যানেজমেন্ট এই বিষয়ে সামান্য বিচলিতও নয়। বরং এআইডিএমকে সরকার যেভাবে গোটা ইস্যুতে পদক্ষেপ করেছে, তার উপরই আস্থা রাখছে তাঁরা। অন্যদিকে, ক্রিকেটারদের নিরাপত্তার বিষয়েও বাড়তি সতর্কতা নিচ্ছেন আইপিএল চেয়ারম্যান রাজীব শুক্লা। সুষ্ঠুভাবে ম্যাচ আয়োজন করা এবং খেলোয়াড়দের নিরাপত্তা বিষয়ে ইতিমধ্যেই স্বরাষ্ট্র দফতরের সচিবের সঙ্গেও কথা বলেছেন তিনি। 

আরও পড়ুন- কমনওয়েলথ গেমসে শুটিংয়ে ব্রোঞ্জ জিতলেন ওম প্রকাশ, ফাইনালে মেরি কম

চেন্নাই দলের খেলা হোক চিপক স্টেডিয়ামেই, এমনটাই চাইছেন আইপিএল চেয়ারম্যান রাজীব শুক্লা। আর সে জন্য গোটা বন্দোবস্ত করবে তামিলনাড়ুর সরকার। কোনও সমস্যা হলে রাজ্য সরকারকেই 'প্ল্যান বি' ভেবে রাখতে হবে বলেও জানিয়েছেন আইপিএল চেয়ারম্যান।