যুবরাজের কাছে ছয় ছক্কা খেয়েও বিশ্বের ভয়ঙ্কর তিন ব্যাটসম্যানের মধ্যে যুবিকে রাখলেন না ব্রড!

২০০৭ এর টি২০ বিশ্বকাপে যুবরাজ সিং, তাঁর ওভারের ছটা বলই পাঠিয়ে দিয়েছিলেন মাঠের ওপারে। মানে, ছ' বলে ছয় ছক্কা। তিনি স্টুয়ার্ট ব্রড। ইংরেজ বলে কথা। ভাঙবেন তবু মচকাবেন না। ব্রড এখন ১০০ টেস্ট খেলার সামনে দাঁড়িয়ে আছেন। এই পরিস্থিতিতে একটি সাক্ষাত্‍কারে তাঁকে জিজ্ঞেস করা হয়েছিল যে, কেরিয়ারে কোন তিনজন ব্যাটসম্যানকে বল করাটা তাঁর কাছে চ্যালেঞ্জ ছিল? এর উত্তরে যুবরাজ সিংয়ের নামই নেননি স্টুয়ার্ট ব্রড!

Updated By: Oct 20, 2016, 11:58 AM IST
যুবরাজের কাছে ছয় ছক্কা খেয়েও বিশ্বের ভয়ঙ্কর তিন ব্যাটসম্যানের মধ্যে যুবিকে রাখলেন না ব্রড!

ওয়েব ডেস্ক: ২০০৭ এর টি২০ বিশ্বকাপে যুবরাজ সিং, তাঁর ওভারের ছটা বলই পাঠিয়ে দিয়েছিলেন মাঠের ওপারে। মানে, ছ' বলে ছয় ছক্কা। তিনি স্টুয়ার্ট ব্রড। ইংরেজ বলে কথা। ভাঙবেন তবু মচকাবেন না। ব্রড এখন ১০০ টেস্ট খেলার সামনে দাঁড়িয়ে আছেন। এই পরিস্থিতিতে একটি সাক্ষাত্‍কারে তাঁকে জিজ্ঞেস করা হয়েছিল যে, কেরিয়ারে কোন তিনজন ব্যাটসম্যানকে বল করাটা তাঁর কাছে চ্যালেঞ্জ ছিল? এর উত্তরে যুবরাজ সিংয়ের নামই নেননি স্টুয়ার্ট ব্রড!

আরও পড়ুন শুধু বিরাট নয়, রোহিতের থেকে বড় ইনিংস চাইছে দিল্লি!

ভাবছেন, তাহলে নাম নিলেন কাঁদের? ব্রডের বিচারে পরপর তিনটি নাম হল, রিকি পন্টিং, হাসিম আমলা এবং ব্র্য়াড হাডিন! ব্রড বলেছেন, "রিকি পন্টিংকে বল করাটাই সবথেকে কঠিন মনে হতো। রিকির সামনে বল করতে যাওয়াটা যেকোনও বোলারেরর কাছেই চ্যালেঞ্জ। এরপরেই আমি নাম নেব, হাসিম আমলার। আমলা মাঠের সব দিকে বল পাঠাতে পারে অবলীলায়। তাই তাঁকে বল করাটা বেশ কঠিন। আর অবশ্যই নাম করব, ব্র্যাড হাডিনের। ৭ নম্বরে ব্যাট করতে নামা কোনও ব্যাটসম্যান যখন মারকুটে মেজাজে ব্যাট করে, তখন তাঁকে বল করাটা খুবই কঠিন হয়।" এছাড়াও ব্রডকে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল, গোটা কেরিয়ারে কোন উইকেটটাকে স্মরণীয় বলবেন? এই প্রশ্নের উত্তরে ৩০ বছর বয়সি ইংরেজ বোলার বলেন, '২০১৬ সালে ডারবানে এবি ডিভিলিয়ার্সের উইকেট পেয়েছিলাম। বলতে পারেন সেটাই আমার জীবনের সবথেকে স্মরণীয় উইকেট।'

আরও পড়ুন  যেটা কল্পনা করাও কষ্টের, সানিয়া মির্জা তেমন কাণ্ডই ঘটিয়ে ফেললেন!