শূন্য রানে আউট হয়ে অবসর ঘোষণা পাক তারকা মহম্মদ হাফিজের!

বিফলতাই শেষ করে দিল ১৫ বছরের ক্রিকেট কেরিয়ার। উপায় না পেয়ে টেস্ট ক্রিকেটকে আলবিদা বললেন প্রাক্তন পাক অধিনায়ক মহম্মদ হাফিজ। সেটাও ম্যাচ চলত চলতেই। 

Updated By: Dec 5, 2018, 12:39 PM IST
শূন্য রানে আউট হয়ে অবসর ঘোষণা পাক তারকা মহম্মদ হাফিজের!

নিজস্ব প্রতিবেদন: ক্রিকেট বড় অনিশ্চয়তার খেলা। আজ নয়, প্রথম দিন থেকেই তাই। ২২ গজে ব্যাট কথা বললে ক্রিকেটার হিরো হয়। তার পুজো হয়। আর বিফল হলেই জুটে যায় খলনায়কের তকমা। চাপ আসে জায়গা ছেড়ে দেওয়ার। মহম্মদ হাফিজের ক্ষেত্রেও তাই হল। ব্যর্থতাই শেষ করে দিল ১৫ বছরের ক্রিকেট কেরিয়ার। উপায় না পেয়ে টেস্ট ক্রিকেটকে আলবিদা বললেন প্রাক্তন পাক অধিনায়ক মহম্মদ হাফিজ। সেটাও ম্যাচ চলত চলতেই। আবু ধাবিতে সাংবাদিক সম্মেলন করে টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসরের কথা জানিয়ে দিলেন এই পাক অলরাউন্ডার।

আরও পড়ুন- গম্ভীরকে হাসির পরামর্শ শাহরুখের!

আবু ধাবিতে নিউ জিল্যান্ডের বিরুদ্ধে টেস্ট খেলছে পাকিস্তান। প্রথম ইনিংসে সফরকারী দেশকে ২৭৪ রানে গুটিয়ে দিয়ে ব্যাট করতে নেমেছিল পাক দল। ইমাম-উল-হকের সঙ্গে ওপেন করতে এসেছিলেন মহম্মদ হাফিজ। পাক ব্যাটসম্যান হয়ত কল্পনাও করতে পারেননি, এটাই হয়ত হতে চলেছে তাঁর জীবনের শেষ টেস্ট ইনিংস! মাত্র ৪ বল খেলেই প্যাভিলিয়নে ফিরতে হয়েছিলে ডান হাতি হাফিজকে। দ্বিতীয় ইনিংসে হয়ত আরও একবার ব্যাট করার সুযোগ থাকবে তাঁর, তবে সেকথা না ভেবেই আচমকা-ই অবসর নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেললেন তিনি।

আরও পড়ুন- ‘আমি ফুরিয়ে গিয়েছি, আমার সময় শেষ’, অবসর ঘোষণা গৌতির

টেস্টের দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষ হতেই সাংবাদিক বৈঠকে  হাফিজ ঘোষণা করলেন, তিনি আর টেস্ট ক্রিকেট খেলবেন না। মহম্মদ হাফিজ জানিয়েছেন, “আমি অনুভব করতে পেরেছি, আমার সময় শেষ। বিগত ১৫ বছর কঠিন পরিশ্রম করেছি। আজ টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসর নেওয়ার কথা ঘোষণা করছি।" একই সঙ্গে তাঁর ক্রিকেট কেরিয়ারে সমস্ত রকম সহযোগিতা করার  জন্য পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছেন তিনি। হাফিজ তাঁর ক্রিকেট সতীর্থদের উদ্দেশে ও টিম ম্যানেজমেন্টের প্রতিও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। পরে সামাজিক মাধ্যমেও নিজের অবসরের কথা জানিয়েছেন তিনি।   

একনজরে মহম্দ হাফিজের টেস্ট কেরিয়ার:

২০০৩ সালে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে টেস্ট অভিষেক হয়েছিল হাফিজের। এরপর দেড় দশকে ৫৫টি টেস্ট খেলেছেন তিনি। তাঁর ঝুলিতে রয়েছে ৩ হাজার ৬৪৪ রান। রয়েছে ১০টি শতরান ও ১২টি অর্ধ-শতরান।