মালয়েশিয়ায় পুলিসের জাল থেকে বাংলার শ্রমিককে ফেরানোর উদ্যোগ

২০১৭ সালের ৭ জুন কলকাতার বিরাটির  গোপালনগরের দালাল  কবীর হোসেনের মাধ্যমে ভোলানাথ বারুই মাসিক ৪০ হাজার টাকা বেতনের চুক্তিতে মালয়েশিয়ায় শ্রমিকের কাজে গিয়েছিলেন ।  

Updated By: Nov 20, 2018, 05:19 PM IST
মালয়েশিয়ায় পুলিসের জাল থেকে বাংলার শ্রমিককে ফেরানোর উদ্যোগ

নিজস্ব প্রতিবেদন:  ঠিকাদারির কাজ নিয়ে মালয়েশিয়া গিয়েছিলেন। কিন্তু সেখানে সে দেশেরই এক নাগরিকের সঙ্গে ঝামেলায় জড়িয়ে পড়েন। অতঃপর ঠাঁই হয় মালয়েশিয়া জেলে। ছাড়া পেতে ভারতীয় মুদ্রায় ৭২ হাজার টাকা দিতে হবে তাঁকে। মালয়েশিয়ায় আটকে পড়া পশ্চিমবঙ্গের কাটোয়ার সেই শ্রমিক  ভোলানাথ বারুইকে ফিরিয়ে আনতে মহকুমা শাসক ও কাটোয়ার বিধায়কের দ্বারস্থ হলেন সুরজ।

আরও পড়ুন: পঞ্চায়েত উপপ্রধানের বাবাকে লক্ষ্য করে গুলি, বোমা

২০১৭ সালের ৭ জুন কলকাতার বিরাটির  গোপালনগরের দালাল  কবীর হোসেনের মাধ্যমে ভোলানাথ বারুই মাসিক ৪০ হাজার টাকা বেতনের চুক্তিতে মালয়েশিয়ায় শ্রমিকের কাজে গিয়েছিলেন ।  ৮ নভেম্বর মালয়েশিয়ার পাহাং জেলার জেরান্তু থানা  এলাকার একটি ব্যাঙ্কে  লাইনে দাঁড়ানো  নিয়ে এক চিনা বাসিন্দার সঙ্গে বচসা হয়। সেই সময় জেরান্তু থানার পুলিশ ভোলানাথ বারুইকে পুলিশকে আটক করে নিয়ে যায়।

আরও পড়ুন: ‘চোর পুলিসের খেলা’! রক্ষীদের চোখে ধুলো দিয়েই হাসপাতাল থেকে পালাল প্রাক্তন উপপ্রধান  

৯  দিন আগে পুলিশের ফোন থেকে কাটোয়ার বাড়িতে যোগাযোগ করেন। ফোনে জানান,  ভারতীয়  মুদ্রায়  ৭২ হাজার টাকা থানায়  দিলে মালয়েশিয়া  পুলিশ তাঁকে  ছেড়ে দেবে।   দালাল কবীর হোসেনের  সঙ্গে ফোনে  যোগাযোগ করার চেষ্টা করেন পরিবারের সদস্যরা। কিন্তু তাঁর ফোন বন্ধ।  ভোলানাথ বারুই যে কোম্পানির শ্রমিক, সেই  " ফিল্ডা গ্লোবাল ভেঞ্চার হোল্ডিং’ কোম্পানি ভোলানাথকে উদ্ধার করতে কোন  রকম সাহায্যে করতে  এগিয়ে আসেনি বলে অভিযোগ। কাটোয়ার বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায় বলেন, “ মুখ্যমন্ত্রীর মাধ্যমে বিদেশ দফতরের  সঙ্গে যোগাযোগ করে ভোলানাথ বারুইকে দেশে ফেরাবার ব্যবস্থা করছি।”