বাংলার রাজনৈতিক ইতিহাসে কালো দিন, দিনের আলোয় গণতন্ত্রকে হত্যা: তেজস্বী

এটা কি গণতন্ত্র? রাজনৈতিক বিক্ষোভের অধিকার নেই? প্রশ্ন বিজেপির যুব নেতার। 

Updated By: Oct 8, 2020, 05:26 PM IST
বাংলার রাজনৈতিক ইতিহাসে কালো দিন, দিনের আলোয় গণতন্ত্রকে হত্যা: তেজস্বী

নিজস্ব প্রতিবেদন: আজ বাংলার রাজনৈতিক ইতিহাসে কালো দিন। দিনের আলোয় গণতন্ত্র ও সাংবিধানকে হত্যা করেছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার। বিজেপির নবান্ন অভিযানের পর সাংবাদিক বৈঠকে এমন দাবিই করলেন যুব মোর্চার সর্বভারতীয় সভাপতি তেজস্বী সূর্য। তাঁর কথায়,''আমাদের হাজারের বেশি কর্মী জখম হয়েছেন। গ্রেফতার করা হয়েছে ৫০০ জনকে। গতকাল রাত থেকে শহরের বিভিন্ন এলাকায় বাস আটকে দেওয়া হয়। এটা কি গণতন্ত্র? রাজনৈতিক বিক্ষোভের অধিকার নেই? গোটা হাওড়া ব্রিজ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। দু-তিন জায়গায় লাঠিচার্জ হয়েছে।''

এ দিন তেজস্বী বলেন,'' সারা দেশে আজ সবচেয়ে দুর্নীতিগ্রস্ত সরকার বাংলায়। সিন্ডিকেট ও কাটমানির সরকার চলছে। এখানে বেকারত্ব বাড়ছে। আতঙ্ক, দুর্নীতিগ্রস্ত ও কর্মনাশা সরকারের বিরুদ্ধে যাঁরা সরব হন, তাঁদের রাজনৈতিক হত্যা করা হয় বাংলায়। ১২০ জনের বেশি বিজেপি কর্মীকে খুন করা হয়েছে।'' 

যুব মোর্চার সর্বভারতীয় সভাপতির কথায়, ''যুব মোর্চার দায়িত্ব পাওয়ার পর আজ প্রথম বিক্ষোভে অংশ নিলাম। বাংলায় গণতন্ত্রকে বাঁচাতে হবে। বাংলার সকল দেশপ্রেমী যুবকদের বলতে চাই, সারা দেশ আপনাদের পাশে। একা নন আপনারা। এটা লড়াইয়ের সূচনা। যুব মোর্চাকে ভয় পেয়েছেন মমতা দিদি। তাই নবান্ন ২ দিনের জন্য বন্ধ করেছেন। এ ডর অচ্ছা হ্যায়।''

অটলবিহারী বাজপেয়ীর কথা টেনে তেজস্বী বলেন,''নতুন ভারত গঠিত হবে। অন্ধকার সরিয়ে নতুন সূর্যের উদয় হবে। বাংলায় সরকার গঠন করবে বিজেপি। দেওয়াল লিখন স্পষ্ট, বাংলায় আগামী সরকার, বিজেপি সরকার।''

আরও পড়ুন- কালীঘাটে মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির সামনে 'জয় শ্রী রাম', বিক্ষোভ মহিলা মোর্চার