বিশ্ববিদ্যালয়-সহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলিকে পরীক্ষা নেওয়ার অনুমতি দিল কেন্দ্র

করোনা বিধি মেনে তবেই পরীক্ষা নেওয়া যাবে। সব দিক খতিয়ে অনুমতি দিয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। অনুমতি পেয়েই তত্‍পর UGC। প

Reported By: শ্রেয়সী গঙ্গোপাধ্যায় | Edited By: Priyanka Dutta | Updated By: Jul 7, 2020, 12:12 AM IST
বিশ্ববিদ্যালয়-সহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলিকে পরীক্ষা নেওয়ার অনুমতি দিল কেন্দ্র
ফাইল চিত্র

নিজস্ব প্রতিবেদন: সমস্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ফাইনাল পরীক্ষা হবে সেপ্টেম্বরেই। উচ্চশিক্ষা সচিবকে অনুমতিপত্র পাঠালো স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। করোনা আবহে দেশজুড়ে কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা বন্ধ। মার্চ মাস থেকে স্থগিত রয়েছে সব পরীক্ষা। এবার সময় মতো বাকি থাকা পরীক্ষাগুলি মিটিয়ে নেওয়ার অনুমতি দিল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। 

আরও পড়ুন:  কেউ বঞ্চিত হবেন না, আমফান ত্রাণে ত্রুটির কথা স্বীকার করেও ক্ষতিগ্রস্তদের আশ্বাস মমতার

করোনা বিধি মেনে তবেই পরীক্ষা নেওয়া যাবে। সব দিক খতিয়ে অনুমতি দিয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। অনুমতি পেয়েই তত্‍পর হয়েছে UGC। শুরু হয়েছে তোড়জোড়। ইতিমধ্যেই পরীক্ষার গাইডলাইন তৈরি করে দিল UGC। জানানো হয়েছে, করোনাবিধি কঠোরভাবে মেনে পরীক্ষা নিতে হবে। 

বিশ্ববিদ্যালয়গুলো নিজেদের সুবিধে মতো অনলাইন এবং অফলাইনে দু-ভাবেই পরীক্ষা নিতে পারবে। যদিও করোনা আবহে একাধিক রাজ্য পরীক্ষা বাতিল করে দিয়েছে। উল্লেখ্য, কেন্দ্রের পাঠানো চিঠিতে বলা হয়েছে, বিনা পরীক্ষায় পাশ করিয়ে দেওয়া চলবে না। অন্তত চূড়ান্ত বর্ষের ছাত্র-ছাত্রীদের পরীক্ষা নিতেই হবে।

আরও পড়ুন:  করোনার বিরুদ্ধে সরকারের লড়াই নিয়ে হার্ভার্ডে গবেষণা হবে, নমোর বক্তব্য তুলে কেন্দ্রকে নিশানা রাহুলের

করোনা আবহে পরীক্ষা নিয়ে জল্পনা ছিলই। রাজ্যের তরফে জানানো হয়েছিল এই পরিস্থিতিতে সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। কলেজ বা স্কুলের কোনও পরীক্ষাই হবে না। যদিও JEE ও NEET-র মতো বড় পরীক্ষাগুলিও পিছিয়ে নতুন তারিখ ঘোষণা করেছিল মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক। এবার নয়া নির্দেশিকায় সমস্ত জল্পনা উড়িয়ে চূড়ান্ত বর্ষের পরীক্ষা নেওয়ার আয়োজন করতে বলল কেন্দ্র। 

এ রাজ্যে অবশ্য বিশ্ববিদ্যালয়স্তরে অন্য পদ্ধতিতে মূল্যায়ণের সিদ্ধান্ত আগেই নেওয়া হয়েছে। রাজ্যের সুপারিশও পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে। তাই পূর্ব নির্ধারিত সিদ্ধান্তেই মূল্যায়ন হবে এ রাজ্যে। কাজেই নয়া বিজ্ঞপ্তি নিয়ে দ্বন্দ্বের কোনও কারণ নেই বলেই জানানো হয়েছে রাজ্য সরকারের তরফে।