চিন্তা করিস না রক্ত লাগলেই দেব, লকডাউনে থ্যালাসেমিয়া আক্রান্ত শিশুদের ভরসা দিচ্ছেন দেবজিত্ ও তাঁর টিম

রক্তের রাখী বন্ধন বললে যাত্রা সিনেমা মনে হতে পারে। কিন্তু এটাই যে সত্যি। করোনার ভয়ে এখন ৫০ জনকে বললে ১জন ডোনার এগিয়ে আসেন।

Reported By: প্রিতম দে | Edited By: সিকান্দর আবু জ়াফর | Updated By: Aug 2, 2020, 07:35 PM IST
চিন্তা করিস না রক্ত লাগলেই দেব, লকডাউনে থ্যালাসেমিয়া আক্রান্ত শিশুদের ভরসা দিচ্ছেন দেবজিত্ ও তাঁর টিম
ছবি-নিজস্ব

নিজস্ব প্রতিবেদন: রবিবার দিন লকডাউন। রক্তদান বন্ধ। করোনা কালে আরো সংকটে ওদের জীবন। ব্লাড ব্যাংক থেকে শুনতে হচ্ছে ডোনার নিয়ে আসুন। করোনার ভয় আসতে চাইছেন না কোন দাতা। এগিয়ে এলেন ১২১ নম্বর ওয়ার্ডের দেবজিৎ বাবু এবং ওনার টিম।

আরও পড়ুন-করোনায় কমেছে মৃত্যুর হার! তাই দেশের ভেন্টিলেটর বিদেশে রপ্তানির অনুমতি দিল কেন্দ্র

রক্তের সম্পর্ক না হলেও রক্তই হতে চলেছে সম্পর্কের রাখী বন্ধন। কারও গ্রুপ এ নেগেটিভ, কারও গ্রুপ বি পজেটিভ। এই দাদারাই হবে ওদের ডোনার। সঙ্গে রাখীর গিফট হিসাবে জীবনদায়ী ওষুধ। দেবজিত্ বাবুকে ফোন করলেই ঘরের দরজায় হাজির হয়ে যায় ডাক্তার বাবু এবং অ্যাম্বুলেন্স সে করোনা রোগী বা থ্যালাসেমিয়ার মত অন্য রোগী। ভাবছেন মোটা টাকার বিনিময়ে এই পরিষেবা! এক টাকাও না।

আরও পড়ুন-শুক্রবার অমিত শাহের সঙ্গে দেখা করেন সৌমিত্র খান, হোম কোয়ারেন্টাইনে যাচ্ছেন বিজেপি সাংসদ

রক্তের রাখী বন্ধন বললে যাত্রা সিনেমা মনে হতে পারে। কিন্তু এটাই যে সত্যি। করোনার ভয়ে এখন ৫০ জনকে বললে ১জন ডোনার এগিয়ে আসেন। ব্লাড ব্যাংকে গেলে ফ্যাকাশে মুখ গুলোকে আরও  রক্তশূন্য করে দিয়ে বলে ডোনার নিয়ে এসো। তাই এই দাদারা থ্যালাসেমিয়া আক্রান্ত এই ভাই বোনদের রাখী পরিয়ে বলছে, চিন্তা করিস না তোদের আমাদের রক্তের গ্রুপ এক। লাগলেই দেব।  রক্তের রাখী বন্ধন ছাড়া কী বলবেন এই দুঃ সময়ে? তমসা ঘোষ এবি পজেটিভ বান্টি মন্ডল এ প্লাস ভাস্কর গায়েন এ প্লাস হিরণ মন্ডল বি প্লাস। সকলেই একজন করে দাদা দিদি পেলো যাঁদের সঙ্গে রক্তের রাখী বন্ধন হল।