Gariahat Murder: গড়িয়াহাট জোড়া খুনে উঠে এল নতুন তথ্য, থ্রিডি মডেলিং পদ্ধতিতে শুরু তদন্ত

ইতিমধ্যেই সুবীর চাকির বাড়ি থেকে বালিগঞ্জ স্টেশন পর্যন্ত স্নিফার ডগ দিয়ে তল্লাশি হয়েছে

Updated By: Oct 19, 2021, 11:32 AM IST
Gariahat Murder: গড়িয়াহাট জোড়া খুনে উঠে এল নতুন তথ্য, থ্রিডি মডেলিং পদ্ধতিতে শুরু তদন্ত

নিজস্ব প্রতিবেদন: গড়িয়াহাটে জোড়া খুনের ঘটনার তদন্তে উঠে এল একাধিক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য। নিহত সুবীর চাকির মোবাইলের গতিবিধি থেকে বেরিয়ে এল বেশকিছু তথ্য।

গোয়েন্দা সূত্রে খবর, খুনের দিন সন্ধে ৬টা ১৭ পর্যন্ত সক্রিয় ছিল শিল্পকর্তা সুবীর চাকির মোবাইল ফোন। তদন্তে উঠে এসেছে খুনের দিন বিকেল সাড়ে পাঁচটার কিছু পরে গড়িয়াহাটের কাঁকুলিয়া রোডের বাড়িতে ঢোকেন সুবীরবাবু। সাড়ে ছটার মধ্যে সুবীরবাবুকে হত্যা করে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যায় আততায়ীরা। ওইসব তথ্যের ভিত্তিতে আজ তদন্তে নেমেছে কলকাতা পুলিসের সায়েন্টিফিক উইং। পায়ের ছাপ, বা রক্তের দাগ কোথাও রয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখছেন গোয়েন্দারা।

আরও পড়ুন-#উৎসব: পা ভেজানো জলে ভাসছে সারিসারি কাঠামো! বিসর্জনের পর দূষণে রিক্ত নদী

ইতিমধ্যেই সুবীর চাকির বাড়ি থেকে বালিগঞ্জ স্টেশন পর্যন্ত স্নিফার ডগ দিয়ে তল্লাশি হয়েছে। স্নিফার ডগ সুবীর চাকির বাড়ি থেকে বালিগঞ্জ স্টেশনের এক নম্বর প্লাটফর্ম পর্যন্ত গিয়ে থমকে গিয়েছে। ফলে অনুমান করা হচ্ছে খুনিরা হয়তো খুনের পর ট্রেনে চড়ে বেরিয়ে গিয়েছে।

ঘটনার তদন্তে নেমেছে কলকাতা পুলিসের হেমিসাইড শাখা। তবে এখনও পর্যন্ত কোনও সিদ্ধান্তে পৌঁছতে পারেননি গোয়েন্দারা। খুনের কারণ কী তাও এখনও স্পষ্ট নয়। তবে অনুমান করা হচ্ছে লুঠের উদ্দেশ্যে খুন করা হতে পারে। কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল, কাঁকুলিয়া রোডের যে বাড়িটি বিক্রির জন্য সুবীর চাকি এসেছিলেন সেখানে লুঠ করার মতো তেমন কোনও কিছু ছিল না। তাহলে কেন খুন?

আরও পড়ুন-Punjab Cabinet: "কথা দিয়ে কথা রেখেছি", বিদ্যুৎ-জলের বকেয়া বিল মকুব পাঞ্জাব সরকারের

ঘটনার দিন অর্থাত্ রবিবার এক ক্রেতাকে বাড়িটি দেখানোর জন্য এসেছিলেন সুবীর চাকি। তাদের মধ্যে একটা ডিল হওয়ার কথাও ছিল। এদিন বিকেল পাঁচটা একুশ মিনিটে সুবীরবাবু বাড়িতে ঢোকেন ও সন্ধে সাড়ে ছটার মধ্যে সুবীরবাবু ও তার গাড়ির চালককে খুন করে চলে যায় আততায়ীরা। এক ঘণ্টার মধ্যে সবকিছু ঘটে যায়। অর্থাত্ আততায়ীরা সুবীর চাকির গতিবিধি সম্পর্কে সবকিছুই জানতো। খুনের পর সুবীর চাকির মোবাইল ফোনটি এখনও নিখোঁজ। সেটি কি খুনিরা নিয়ে চলে গিয়েছে? অথচ তার গাড়ির চালকের ফোনটি রেখে গিয়েছে। ফলে প্রশ্ন উঠছে, সুবীর চাকির ফোনে এমন কিছু কি ছিল যার জন্য তার ফোনটি নিয়ে চলে যেতে পারে আততায়ীরা? 

বছর দুয়েক ধরে ওই বাড়িটি বিক্রি করার চেষ্টা করছিলেন সুবীর চাকি। এর আগেও বাড়িটি অনেককে দেকানো হয়েছে। তবে প্রতিবার তিনি নিজে আসতেন না। বাড়িটি ক্রেতাকে দেখাতো তাঁর গাড়ির চালক। কিন্তু এবার নিজে এসেছিলেন সুবীর চাকি। তার পরে এই ঘটনা।  

(Zee 24 Ghanta App দেশ, দুনিয়া, রাজ্য, কলকাতা, বিনোদন, খেলা, লাইফস্টাইল স্বাস্থ্য, প্রযুক্তির লেটেস্ট খবর পড়তে ডাউনলোড করুন Zee 24 Ghanta App)