করোনায় প্রয়াত চিকিৎসক, হাসপাতালে বিল উঠেছে ১৯ লাখ! রিভিউয়ের আবেদন স্বাস্থ্য কমিশনের

 হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন যে তাঁরা বিলটি রিভিউ করছেন এবং যথাযথ ব্যবস্থা নেবেন।

Reported By: তন্ময় প্রামাণিক | Edited By: সুদেষ্ণা পাল | Updated By: Aug 12, 2020, 06:13 PM IST
করোনায় প্রয়াত চিকিৎসক, হাসপাতালে বিল উঠেছে ১৯ লাখ! রিভিউয়ের আবেদন স্বাস্থ্য কমিশনের
প্রদীপ ভট্টাচার্য (বাঁদিকে), মেডিকা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল (ডানদিকে)

তন্ময় প্রামাণিক : নজিরবিহীন ঘটনা! মেডিকা হাসপাতালে টেক্সট মেসেজ করে করোনা আক্রান্ত মৃত চিকিৎসকের আকাশছোঁয়া বিল ফের রিভিউ করে কিছু টাকা পরিবারের হাতে দেওয়ার জন্য আবেদন জানাল রাজ্যের স্বাস্থ্য কমিশন। এমন স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে বিল পুনরায় বিবেচনা করে কমানোর নির্দেশ শুধু এই প্রথম নয়, এককথায় নজিরবিহীনও বটে! করোনা আক্রান্ত জনপ্রিয় চিকিৎসক প্রদীপ ভট্টাচার্যের মৃত্যুর পর পরিবারের হাতে প্রায় ১৯ লাখ টাকার বিল ধরানোর বিষয় নজরে আসতেই মেডিকা হাসপাতালকে বিল রিভিউ করে কমানোর আবেদন জানাল স্বাস্থ্য কমিশন।

উত্তর ২৪ পরগনার শ্যামনগরের বাসিন্দা করোনা আক্রান্ত জনপ্রিয় চিকিৎসক প্রদীপ ভট্টাচার্যের মৃত্যু নিয়ে রাজ্যের স্বাস্থ্য কমিশন নড়েচড়ে বসল। মৃত চিকিৎসকের করোনা চিকিৎসায় বিল হয়েছে আকাশছোঁয়া, প্রায় ১৯ লাখ টাকার কাছাকাছি। সেই বিলেরই এবার তথ্য তলব করল সংশ্লিষ্ট হাসপাতালের কাছে রাজ্য স্বাস্থ্য কমিশন। বিল রিভিউ করে দেখে কিছুটা কমানো যায় কিনা, সে কথাই কমিশন জানিয়েছে মেডিকা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে।

করোনা আক্রান্ত হয়ে গুরুতর অসুস্থ প্রদীপ ভট্টাচার্য বেসরকারি মেডিকা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। সোমবার দুপুরে মৃত্যু হয় চিকিৎসক প্রদীপ ভট্টাচার্যের। তারপরই সামনে আসে যে হাসপাতালের বিল হয়েছে প্রায় ১৯ লাখের কাছাকাছি। বিশাল অঙ্কের এই বিল নিয়ে সরব হয় একাধিক চিকিৎসক সংগঠন এবং চিকিৎসকদের একটা বড় অংশ। বিষয়টি নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতেও তোলপাড় হয়। বিষয়টি নজরে আসে রাজ্যের স্বাস্থ্য কমিশনেরও।

বুধবার কমিশনের চেয়ারম্যান প্রাক্তন বিচারপতি অসীম কুমার বন্দোপাধ্যায় বলেন, "সোশ্যাল মিডিয়া থেকেই প্রথম বিষয়টি আমাদের নজরে এসেছে। এটা অত্যন্ত দুঃখজনক। চিকিৎসক প্রদীপ ভট্টাচার্য অত্যন্ত জনপ্রিয় চিকিৎসক ছিলেন। আজ সকাল একটি মেসেজ করা হয় সংশ্লিষ্ট হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে। সেখানে কমিশনের তরফে বলা হয় যে প্রদীপবাবুর বিলের রিভিউ করা হোক। কারণ ১৮ লক্ষ ২৫ হাজার টাকা বিল হয়েছে বলে আমরা জানতে পেরেছি। তাই সেই বিলটি পুনরায় খতিয়ে দেখা হোক। দেখে যদি কিছুটা কম করা যায়, তাহলে যেন সেটা বাড়ির লোককে ফেরৎ দেওয়া হয়। আমরা বুধবার সকালে ১০টা ১৮-তে এই মেসেজ করেছিলাম। ৫ মিনিটের মধ্যেই সংশ্লিষ্ট হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ আমাদের উত্তর দিয়ে জানিয়েছেন যে তাঁরা বিলটি রিভিউ করছেন এবং যথাযথ ব্যবস্থা নেবেন।"

আরও পড়ুন, 'আগে ৩ লাখ দিন, তারপর ভর্তি', শেষে অ্যাম্বুল্যান্সের মধ্য়েই পড়ে থেকে মৃত্যু করোনা রোগীর