তিন নারীকে যৌনতার জন্য বন্দি করে বেভারলি হিলস ম্যানসনে আটকে রাখলেন প্রিন্স!

একে প্রিন্স। তার উপর সৌদি আরবের। একটু আধটু মহিলা মোহ থাকবে না! তা না হলে আবার প্রিন্সের কিসের! মজিদ আবদুল্লাজিজ আল সাদ। বয়স ২৯। যৌবন টইটম্বুর। অগাধ ঐশ্বর্য। সঙ্গে প্রবল ক্ষমতার অধিকারী। গিয়েছিলেন আমেরিকায় ছুটি কাটাতে। তা দরকার ছিল একটু নারীসঙ্গ।

Updated By: Oct 27, 2015, 01:43 PM IST
তিন নারীকে যৌনতার জন্য বন্দি করে বেভারলি হিলস ম্যানসনে আটকে রাখলেন প্রিন্স!

ওয়েব ডেস্ক: একে প্রিন্স। তার উপর সৌদি আরবের। একটু আধটু মহিলা মোহ থাকবে না! তা না হলে আবার প্রিন্সের কিসের! মজিদ আবদুল্লাজিজ আল সাদ। বয়স ২৯। যৌবন টইটম্বুর। অগাধ ঐশ্বর্য। সঙ্গে প্রবল ক্ষমতার অধিকারী। গিয়েছিলেন আমেরিকায় ছুটি কাটাতে। তা দরকার ছিল একটু নারীসঙ্গ।

কিন্তু এক নারীতে কী আর প্রিন্সের মন ভরে? তাই তলব, তিন তিনজন আমেরিকান সুন্দরীকে বেভারলি হিলস ম্যানসনে। ওই তিন সুন্দরী মহিলাকে ডাকা হয়েছিল হাউসকিপারের কাজ করার জন্য। কিন্তু তিনদিন ধরে সেই গল্প মোর নেয় অপরাধের উপন্যাসে।

ওই তিন মহিলাকে যথেচ্ছ যৌন অত্যাচার করেও স্বাদ মিটছিল না প্রিন্সের। বিছানায় মনের আনন্দে সব খেলা খেলে ফেলে, প্রিন্স ওই তিন মহিলাকে নগ্ন করে সুইমিং পুলে দাঁড় করিয়ে দেন। এটাতেই নাকি তাঁর যৌন তৃপ্তি হবে। ওই তিন মহিলার সামনে দাঁড়িয়ে হস্তমৈথুন করেন প্রিন্স। সঙ্গে কোকেনও নিতে থাকেন অবিরত।

অবশেষে এক মহিলা স্থানীয় থানায় খবর দেন। এবং পরে মজিদ আবদুল্লাজিজ আল সাদকে গ্রেফতার করে পুলিশ। কিন্তু ছাড়া পেলে প্রিন্সের ফের যৌন ক্ষুদার সামনে কত নারীর প্রয়োজন হবে, তা কী করে জানা যাবে!