কাঠগড়ায় ভারতীয় রেলের পরিষেবা, এবার এসি না চলার অভিযোগ

হাওড়া-যশবন্তপুর দুরন্ত এক্সপ্রেসে প্রচুর মানুষ বেঙ্গালুরুতে চিকিত্সার জন্য যান। 

Updated By: May 12, 2019, 12:06 PM IST
কাঠগড়ায় ভারতীয় রেলের পরিষেবা, এবার এসি না চলার অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদন : ফের কাঠগড়ায় ভারতীয় রেলের পরিষেবা। ট্রেন দেরিতে চলা থেকে শুরু করে নিম্নমানের খাবার পরিবেশন, একের পর এক অভিযোগে জেরবার ভারতীয় রেলের পরিষেবা। অভিযোগের খাতায় এবার নতুন করে জুড়ে গেল আরেক কাণ্ড। এবার ১২২৪৫ হাওড়া-যশবন্তপুর দুরন্ত এক্সপ্রেসে এসি ঠিকঠাক কাজ না করার অভিযোগ তুললেন যাত্রীরা। জানা গিয়েছে, ট্রেনটি হাওড়া থেকে যাত্রা শুরু করার পর থেকেই ট্রেনের বেশ কয়েকটি কামরার এসি কাজ করছিল না। একে তো তীব্র গরম। তার উপর এসি না চলায় কামরার ভিতর অস্বস্তিকর পরিস্থিতি তৈরি হয়। নাজেহাল হয়ে যান যাত্রীরা।

আরও পড়ুন-  বদলাতে পারে সরকারি নিয়ম, প্রাইভেট গাড়িতে তুলতে পারবেন যাত্রী!

গতকাল দুপুর এগারোটা ১২২৪৫ হাওড়া যশবন্তপুর দুরন্ত এক্সপ্রেস হাওড়া থেকে ছাড়ার কথা ছিল। ট্রেন ছাড়ে দশ মিনিট দেরি করে। হাওড়া থেকে ছাড়ার পরই ট্রেন দেরিতে চলতে শুরু করে। নির্ধারিত সময় থেকে তিন ঘণ্টা দেরিতে ট্রেন ভুবনেশ্বর পৌঁছয়। তখন রাত পৌনে আটটা। গোটা সময়টাতে ট্রেনির কয়েকটি কামরায় এসি কাজ করছিল না। কামরার ভিতর দমবন্ধকর পরিবেশ তৈরি হয়। এ ওয়ান, বি ২ ও বি ৩ কোচে এসি কাজ করছিল না বলে অভিযোগ। কয়েকজন যাত্রী কোচ  অ্যাটেনড্যান্ট-এর কাছে এই নিয়ে অভিযোগ জানান। কিন্তু কোচ অ্যাটেনড্যান্ট এই ব্যাপারে হেলদোল দেখাননি।

এর পর বাধ্য হয়েই ভুবনেশ্বর স্টেশনে নেমে গার্ডে কেবিন ঘিরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন যাত্রীদের একাংশ। কিন্তু তাতেও সমস্যার সমাধা হয়নি। এরই মধ্যে কয়েকজন অভিযোগ জানিয়েছেন, গার্ড বিক্ষোভরত যাত্রীদের ভুবনেশ্বর স্টেশনে ফেলে ট্রেন ছেড়ে দেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন।

আরও পড়ুন-  এসি-তে বসে 'আসল' গৌতম গম্ভীর, গরমে প্রচার করছেন তাঁর ডুপ্লিকেট! ছবি ঘিরে বিতর্ক

হাওড়া-যশবন্তপুর দুরন্ত এক্সপ্রেসে প্রচুর মানুষ বেঙ্গালুরুতে চিকিত্সার জন্য যান। এদিনও ওই ট্রেনে একাধিক অসুস্থ ব্যক্তি ছিলেন। অনেকে আবার লাইফ সাপোর্ট সিস্টেম-এও ছিলেন। একটানা এতক্ষণ ট্রেনের এসি বিকল থাকায় অসুস্থদের অবস্থার আরও অবনতি হতে থাকে। রাতের দিকে বাইরের তাপমাত্রা কিছুটা কমায় কামরার ভিতরের পরিবেশে কিছুটা উন্নতি হয়। কিন্তু শেষমেশ এসি আর ঠিক করা হয়নি। ভুবনেশ্বর স্টেশন মাস্টার-এর কাছে এই নিয়ে অভিযোগ দায়ের করেছেন যাত্রীরা। রেলের তরফে অবশ্য এই নিয়ে কিছু বলা হয়নি।