গোর্খাল্যান্ডের কথা মানেনি BJP, মুখ্যমন্ত্রী কি মেনে নিলেন? প্রশ্ন বিজেপির

একুশের ভোটে তৃণমূলকে সমর্থন দেওয়ার কথা ঘোষণা করলেন বিমল গুরুং। 

Updated By: Oct 21, 2020, 11:30 PM IST
গোর্খাল্যান্ডের কথা মানেনি BJP, মুখ্যমন্ত্রী কি মেনে নিলেন? প্রশ্ন বিজেপির

নিজস্ব প্রতিবেদন: বাংলা ভাগ করতে চাইছে বিজেপি। দিন কয়েক আগেও গেরুয়া শিবিরের বিরুদ্ধে উঠেছিল অভিযোগ। এবার গুরুংয়ের প্রত্যাবর্তনে পাল্টা মমতার দিকে আঙুল তুলল বিজেপি। মমতা কি তাহলে বাংলা ভাগের দাবি মেনে নিলেন? প্রশ্ন করলেন সায়ন্তন বসু।

এ দিন সাংবাদিক বৈঠকে বিমল গুরুং বলেন,''প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রতিশ্রুতি রাখেননি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যা বলেন, তাই করেন। এটা বাইরে থেকে দেখেছি। ২০২১ সালের নির্বাচনে আমরা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে জোটে লড়াই করব। বিজেপিকে মোক্ষম জবাব দেব। মমতাই ফের মুখ্যমন্ত্রী হবেন।'' তবে গোর্খাল্যান্ডের দাবি তিনি ছাড়ছেন বলেও স্পষ্ট করে দেন গুরুং। আর এই বিষয়টি তুলে ধরেছে বিজেপি। সায়ন্তন বসু বলেন,''এতদিন গোর্খাল্যান্ডের দাবি মানেনি বিজেপি। গুরুং নিজেই বলেছেন প্রধানমন্ত্রী বা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তাঁর কথা শোনেননি। অথচ বলছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী যা বলেন তাই করেন। তাহলে কি তিনি গোর্খাল্যান্ডের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন?''

সায়ন্তন আরও বলেন,''আমাদের বিরুদ্ধে বাংলা ভাগের চক্রান্তের অভিযোগ তুলেছিলেন। তাহলে কি এবার পাহাড় বাংলা অংশ থাকবে না? রাজ্য সরকারকে ব্যাখ্যা দিতে হবে। ৩ আসনের জন্য বাংলা বিভাজন মেনে নেবেন মুখ্যমন্ত্রী? এটা দুর্ভাগ্যের বিষয়।'' 

এ দিন তৃণমূল জানিয়েছে,''শান্তির পক্ষে বিমল গুরুংয়ের দায়বদ্ধতা ও এনডিএ ছাড়ার সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাচ্ছি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে আস্থা রেখেছেন উনি। সস্তার রাজনীতির জন্য গোর্খাল্যান্ডকে ব্যবহার করছে বিজেপি। তাদের প্রতারণার মুখোশও খুলে গিয়েছে আজ।''            

আরও পড়ুন- দুপুর ১২টায় পুজোর আনন্দ ভাগ করে নেব, সঙ্গে থাকবেন, বাংলায় বার্তা মোদীর