নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্তে পথে বসল তৃণমূল, কটাক্ষ রাহুল সিনহার

পশ্চিমবঙ্গে অবাধ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের জন্য কমিশনের এই সিদ্ধান্ত অত্যন্ত জরুরি ছিল বলেই তিনি মনে করেন।

Updated: May 15, 2019, 10:58 PM IST
নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্তে পথে বসল তৃণমূল, কটাক্ষ রাহুল সিনহার

নিজস্ব প্রতিবেদন: নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্তে পথে বসল তৃণমূল কংগ্রেস। এভাবেই বুধবার রাতে রাজ্যের শাসক দলের বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন রাহুল সিনহা। বিজেপির এই নেতা জানিয়েছেন, নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্তে খুশি বিজেপি।

তাঁর মতে, রাজ্যের সাধারণ মানুষও খুশি হয়েছেন নির্বাচন কমিশনের এই সিদ্ধান্তে। পশ্চিমবঙ্গে অবাধ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের জন্য কমিশনের এই সিদ্ধান্ত অত্যন্ত জরুরি ছিল বলেই তিনি মনে করেন।

আরও পড়ুন: ভোটব্যাঙ্কের স্বার্থে মূর্তির বিরোধী মমতাই, হিম্মত থাকলে সিসিটিভি ফুটেজ দেখান: যোগী

রাহুল সিনহার এবার উত্তর কলকাতা লোকসভা কেন্দ্রে বিজেপির প্রার্থী। তাঁর সমর্থনেই মঙ্গলবার বিকেলে কলকাতায় এক মিছিলের আয়োজন করা হয়েছিল বিজেপির তরফে। সেই মিছিল শুরু হয় শহিদ মিনার থেকে। মিছিল শেষ হয় কলকাতার সিমলা স্ট্রিটে স্বামী বিবেকানন্দর বাড়ির সামনে।

ওই মিছিলে ছিলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। সেই মিছিল যখন কলেজ স্ট্রিট ও বিধান সরণি দিয়ে যাচ্ছিল, সেই সময় গোলমাল হয়। অমিত শাহর মিছিলে কালো পতাকা দেখানো হয়।

আরও পড়ুন: মূর্তি ভাঙার পর জনমানসের আবেগ থেকে নজর ঘোরাতে এটা মোদী-শাহের নির্দেশ: মমতা

বিজেপি অভিযোগ করে, তৃণমূলের তরফে পরিকল্পিত ভাবেই বিক্ষোভ করা হয়। মিছিলে ইট ছোড়া হয়। এ নিয়ে বিদ্যাসাগর কলেজের সামনে ধুন্ধুমার বাঁধে। দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। ভেঙে যায় বিদ্যাসাগর কলেজে বিদ্যাসাগরের মূর্তি।

এ নিয়ে মঙ্গলবার রাত থেকেই উত্তপ্ত রাজ্যের রাজনৈতিক বাতাবরণ। তৃণমূল কংগ্রেস বিজেপির বিরুদ্ধে পরিকল্পিতভাবে অশান্তি ছড়ানোর অভিযোগ করে। দু’পক্ষই নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ করে।

আরও পড়ুন: বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙায় ব্যথিত আচার্য কেশরীনাথ

তারই প্রেক্ষিতে বুধবার সন্ধ্যায় নির্বাচন কমিশনের তরফে শেষ দফার ভোটে কড়া পদক্ষেপের কথা ঘোষণা করা হয়। আগামী রবিবার শেষ দফার নির্বাচন। প্রচার শেষ হওয়ার কথা ছিল শুক্রবার বিকেলে। কিন্তু তার বদলে প্রচার শেষ হয়ে যাবে বৃহস্পতিবার রাত ১০টায়।

একই সঙ্গে কমিশনের তরফে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে রাজ্যের স্বরাষ্ট্রসচিব অত্রি ভট্টাচার্যকে। তাঁর বিরুদ্ধে নির্বাচন সংক্রান্ত বিষয়ে কমিশনকে নির্দেশ দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

আরও পড়ুন: রাজ্যের কোনও অধিকার খর্ব হয়নি, মনে করছেন কংগ্রেসের প্রদীপ ভট্টাচার্য

তারই প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে রাহুল সিনহা এদিন জানান যে নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্তে বিজেপি খুশি। তিনি জানান, কমিশনের সিদ্ধান্ত ইতিবাচক। বিজেপি এই সিদ্ধান্তকে সমর্থন করছে।

উল্লেখ্য, কমিশনের সিদ্ধান্তের পর প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি নির্বাচন কমিশনের সমালোচনা করেছেন। কমিশন বিজেপির কথায় চলছে বলে তিনি অভিযোগ করেন।

আরও পড়ুন: হাতে আগে থেকে চিড় ছিল, স্বীকার করলেন বিদ্যাসাগর কলেজে তৃণমূলের সেই ছাত্র নেতা

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই অবস্থানের কারণ তিনি ভয় পেয়েছেন, এমনই মন্তব্য এদিন করেছেন বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা।