সেপটিক ট্যাঙ্ক কাজ করতে নেমে বিষাক্ত গ্যাসের শিকার, একে একে ঢলে পড়লেন ৬ শ্রমিক

 মণীশ কুমার নামে এক ব্যক্তি জানিয়েছেন, ট্যাঙ্কে খোঁড়ার কাজ ১৫ দিন আগেই শেষ হয়ে গিয়েছিল। রবিবার ট্যাঙ্কের সেন্টারিংয়ের কাঠ খোলার জন্য কাজে লেগেছিলেন ওই ৬ জন

Edited By: সিকান্দর আবু জ়াফর | Updated By: Aug 9, 2020, 11:31 PM IST
সেপটিক ট্যাঙ্ক কাজ করতে নেমে বিষাক্ত গ্যাসের শিকার, একে একে ঢলে পড়লেন ৬ শ্রমিক
ছবি-টুইটার

নিজস্ব প্রতিবেদন: সেপটিক ট্যাঙ্ক তৈরি করতে গিয়ে প্রাণ গেল ৬ শ্রমিকের। রবিবার ওই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে ঝাড়খণ্ডের দেওঘরের দেবীপুর বাজারে।

আরও পড়ুন-জরুরি বিভাগেই দ্রুত সিদ্ধান্ত, রাজ্যের প্রতিটি কোভিড হাসপাতালে তৈরি থাকবে ক্যুইক রেসপন্স টিম

এদিন ২০ ফুট গভীর ও ৭ ফুট চওড়া নতুন ওই সেপটিক ট্যাঙ্ক তৈরির কাজে লেগেছিলেন ব্রজেশ চন্দ্র বার্নওয়াল(৫০), মণীশ চন্দ্র বার্নওয়াল(৪০), গোবিন্দ মাঝি(৩০), বাবলু মাঝি(২৫), লীলু মুর্মু(৩০) ও লালু মাঝি(২৫)। ট্যাঙ্কের মধ্যে থেকে বেরিয়ে আসা বিষাক্ত গ্যাসে ভেরতেই মৃত্যু হয় ৬ জনের।

দেওঘরের ডেপুটি পুলিস কমিশনার কমলেশ্বর প্রসাদ জানিয়েছেন, আশঙ্কাজনক অবস্থায় ওই ৬ জনকেই হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু হাসপাতালে তাঁদের মৃত বলে ঘোষণা করা হয়। প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে ট্যাঙ্কের মধ্যে কার্বন ডাই অক্সাইড বা কার্বন মনোক্সাইডের মতো গ্যাসেই ওই ৬ ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে।

আরও পড়ুন-গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে করোনায় মৃ্ত্যু ৫৪ জনের, সুস্থতার হার ৭০ শতাংশ

ট্যাঙ্কের কাজ করার সময়ে প্রথম ভেতরে যান লালু মুর্মু। ব্রজেশ বার্ণওয়ালের প্রতিবেশী মণীশ কুমার নামে এক ব্যক্তি জানিয়েছেন, ট্যাঙ্কে খোঁড়ার কাজ ১৫ দিন আগেই শেষ হয়ে গিয়েছিল। রবিবার ট্যাঙ্কের সেন্টারিংয়ের কাঠ খোলার জন্য কাজে লেগেছিলেন ওই ৬ জন। লালুর কোনও সাড়শব্দ না পেয়ে ভেতরে ঢোকেন গোবিন্দ মাঝি। এরপর একের পর এক বাকীরা ভেতরে যান। সবাই একেএকে ভেতরে ঢলে পড়েন।