৩২ বছরের দ্বীপ-নির্বাসন থেকে 'রবিনসন' আবার কেন ফ্ল্যাটে?

ইতালির ভোগবাদ ও রাজনৈতিক পরিস্থিতির উপর বিরক্ত হয়েই দ্বীপে থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন।

Updated By: May 2, 2021, 06:16 PM IST
৩২ বছরের দ্বীপ-নির্বাসন থেকে 'রবিনসন' আবার কেন ফ্ল্যাটে?

নিজস্ব প্রতিবেদন: তিন দশকের প্রকৃতির সান্নিধ্য শেষ হতে চলল খুবই দুঃখজনক ঘটনার মধ্যে দিয়ে।

ইতালির (Italy) এক ব্যক্তি ৮১ বছরের মাউরো মোরান্দি (Mauro Morandi), যিনি   'রবিনসন ক্রুসো' (Robinson Crusoe) নামে পরিচিত, তিনি দীর্ঘ ৩২ বছর ধরে সার্ডিনিয়া (Sardinia)উপকূলের বুডেলি (Budelli) নামের একটি নির্জন দ্বীপে একা বাস করছিলেন। কিন্তু সম্প্রতি কর্তৃপক্ষের চাপের মুখে পড়ে দ্বীপটি ছাড়তে বাধ্য হচ্ছেন তিনি। তিনি এ বিষয়ে একটি উচ্ছেদ নোটিসও পেয়েছেন। তিনি 'আইল অফ বুডেলি'র একমাত্র বাসিন্দা। ১৯৮৯ সাল থেকে এই দ্বীপে বসবাস করছিলে। ইতালি থেকে পলিনেশিয়া (Polynesia)যাওয়ার পথে মাউরো এ দ্বীপের প্রেমে পড়ে যান। সেই থেকেই আছেন এখানে। সম্প্রতি তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় লেখেন, তিনি এখান থেকে চলে যাচ্ছেন। তবে তিনি আশা করছেন, গত ৩২ বছর ধরে যেভাবে রেখেছিলেন বুডেলিকে আগামী দিনেও এটি সেভাবেই সুরক্ষিত থাকবে।

আরও পড়ুন: বাড়ির দেওয়ালে রহস্যময় দাগ! কে দিল? ভীত শহরবাসী!

ইতালি সরকার দ্বীপটিকে জাতীয় উদ্যানে পরিণত করবে বলে শোনা যাচ্ছে। তাই তাঁকে কয়েক বছর ধরেই উচ্ছেদের হুমকি দেওয়া হচ্ছিল। লা-ম্যাডডালেনার (La Maddalena) জাতীয় উদ্যান কর্তৃপক্ষ দ্বীপটিকে নাকি পরিবেশশিক্ষার এক কেন্দ্রে রূপান্তরিত করতে চান। তাই মাউরোকে সরাতে চান তাঁরা। ২০২০ সালের জানুয়ারিতে উদ্যান কর্তৃপক্ষ মাউরো মোরান্দির কুঁড়েঘরকে অবৈধ উল্লেখ করে (illegal alterations to his hut, a former radio station dating back to World War Two)। 

কিন্তু কেন হঠাৎবছর পঞ্চাশের মাউরো সভ্যতা থেকে দূরে একাকী হয়ে গেলেন?

ইতালির ভোগবাদ ও রাজনৈতিক পরিস্থিতির উপর বিরক্ত হয়ে মোরান্দি তাঁর বন্ধুদের নিয়ে কোলাহল থেকে দূরে প্রকৃতির কাছাকাছি কোথাও একটি নতুন জীবনযাত্রা শুরু করতে চেয়েছিলেন। তাই সমুদ্রের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছিলেন। এরপর মোরান্দি বুডেলির এই গোলাপি সৈকতে (pink beach) পৌঁছন। দ্বীপের মালিকের সঙ্গে দেখা করে তিনি তাঁর নৌকা বিক্রি করে দ্বীপটির তত্ত্বাবধায়ক হিসাবে থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। 

তবে, এখন তিনি হতাশ নন। তিনি এখনও সমুদ্রের কাছেই থাকবেন। তিনি লা ম্যাডডালেনার একটি ছোট ফ্ল্যাটে চলে যাবেন।

আরও পড়ুন: নায়াগ্রার আলোকসজ্জায় ভারতীয় পতাকার রঙ-আভাস, করোনায় পাশে থাকার বার্তা