close

News WrapGet Handpicked Stories from our editors directly to your mailbox

কেন উইলিয়ামসনের কাছে 'বাকি জীবন' ক্ষমা চাইবেন বেন স্টোকস

শেষ ওভারে ওভার থ্রোতে ওই চারটাই ম্যাচের টার্নিং পয়েন্ট।  

Sukhendu Sarkar | Updated: Jul 15, 2019, 11:29 PM IST
কেন উইলিয়ামসনের কাছে 'বাকি জীবন' ক্ষমা চাইবেন বেন স্টোকস

নিজস্ব প্রতিবেদন :  এভাবেও ফিরে আসা যায়। ২০১৬ থেকে ২০১৯ এক বিশ্বকাপ ফাইনালের খলনায়ক তিন বছর পর বিশ্বকাপ ফাইনালে তিনিই নায়ক। তিনি বেন স্টোকস। ২০১৬ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালে ইডেন গার্ডেন্সে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে শেষ ওভারে বেন স্টোকসকেই চারটি ছয় মেরে ক্যারিবিয়ানদের বিশ্বকাপ জিতিয়েছিলেন কার্লোস ব্রেথওয়েট। সেদিন ব্রিটিশদের কাছে ভিলেন হয়েছিলেন বেন স্টোকস। তারপর নাইট ক্লাবে বচসা থেকে খারাপ ফর্ম। গত তিন বছরে অনেক ঝড়-ঝাপটা সামলেছেন তিনি। তিন বছর পর দেশের মাটিতে বিশ্বকাপের ফাইনালে যেন ২০১৬-র ফাইনালের প্রায়শ্চিত্ত করলেন বেন স্টোকস। ২০১৯ বিশ্বকাপ ফাইনালের তিনিই নায়ক। অপরাজিত ৮৪ রান করে কিউইদের বিরুদ্ধে ম্যাচ টাই করেন বেন স্টোকস। তারপর সুপার ওভারেও বাজিমাত্। ম্যাচের সেরাও হয়েছেন তিনি। ক্রিকেটের নন্দন কাননের (ইডেন গার্ডেন্স) শাপমুক্তি ক্রিকেটের মহাতীর্থে (লর্ডস)।

 

শেষ ওভারে স্টোকসের ব্যাটে লেগে ওভার থ্রো! পাঁচ না ছয় রান? ইংল্যান্ড বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হওয়ার ২৪ ঘণ্টা পরেও আম্পায়ারের বিতর্কিত সিদ্ধান্ত নিয়ে তোলপাড় ক্রিকেট বিশ্ব। ইংল্যান্ডের ইনিংসে শেষ ওভারের চতুর্থ বলে ট্রেন্ট বোল্টের বল ডিপ মিড উইকেটে মেরে দু রানের জন্য দৌড় দেন বেন স্টোকস। তখন মার্টিন গাপটিল বল ধরে উইকেট রক্ষকের দিকে ছোঁড়েন। কিন্তু সেই বল সরাসরি স্টোকসের ব্যাটে লেগে ওবার থ্রোতে বাউন্ডারি হয়ে যায়। এক বলে ছয় রান পেয়ে যায় ইংল্যান্ড। জয়ের অঙ্ক সহজ হয়ে যায় ব্রিটিশদের কাছে। যদিও অনিচ্ছাকৃতভাবেই বল স্টোকসের ব্যাটে লাগে। স্টোকস অবশ্য সঙ্গে সঙ্গে মাঠের মধ্যেই ক্ষমা চাওয়ার ভঙ্গিতে হাত তোলেন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, শেষ ওভারে ওভার থ্রোতে ওই চারটাই ম্যাচের টার্নিং পয়েন্ট।  

আরও পড়ুন - ICC World Cup 2019 Final: শেষ ওভারে স্টোকসের ব্যাটে লেগে ওভার থ্রো! পাঁচ না ছয় রান? বিতর্ক তুঙ্গে

ম্যাচ শেষে স্টোকস জানান, তিনি বাকি জীবন তিনি কেন উইলিয়ামসনের কাছে ক্ষমাপ্রার্থী হয়ে থাকবেন।  তিনি বলেন, "আমার বলার কোনও ভাষা নেই। বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্য আমরা অনেক পরিশ্রম করেছিলাম। অসাধারণ অনুভূতি। নিউ জিল্যান্ডের বিরুদ্ধে খেলা সব সময়ই ভাল। ওরা দারুণ দল। আমি কেনের কাছে বাকি জীবন ক্ষমা চাইব।... এটা আমাদের ভাগ্যে লেখা ছিল।''