close

News WrapGet Handpicked Stories from our editors directly to your mailbox

ভুল ঢাকার চেষ্টা! ক্রিকেটারের পায়ের বুড়ো আঙুল কেটে হাতে বসিয়ে দিলেন ডাক্তাররা

চিকিত্সকরা তাঁকে বলেন, একটা সাধারণ অপারেশন করতে হবে। তা হলেই আঙুলে আর কোনও সমস্যা হবে না। অপারেশনের জন্য সম্মতি জানায় ব্রিটনির বাড়ির লোক।

Updated: Sep 11, 2019, 07:29 PM IST
ভুল ঢাকার চেষ্টা! ক্রিকেটারের পায়ের বুড়ো আঙুল কেটে হাতে বসিয়ে দিলেন ডাক্তাররা

নিজস্ব প্রতিবেদন : শুরুতেই ভুল। তার পর সেই ভুল ঢাকায় চেষ্টায় আবার ভুল। ডাক্তারদের ভুলে একজন প্রতিশ্রুতিমান ক্রিকেটারের কেরিয়ার শেষ হয়ে গেল। অস্ট্রেলিয়ার ঘটনা। ব্রিটনি থমাস নামের এক উঠতি ক্রিকেটারের কেরিয়ার শেষ করে দিলেন ডাক্তাররা। ম্যাচ চলাকালীন হাতের বুড়ো আঙুলে চোট পেয়েছিল ব্রিটনি। যন্ত্রণা বাড়তে থাকায় চিকিত্সকের পরামর্শ নিতে যায় ১৭ বছর বয়সী ব্রিটনি। মেলবোর্ন শহর থেকে ঘন্টাদুয়েক দূরে লাটরোবে রিজিওনাল হাসপাতালের চিকিত্সকরা তাঁকে বলেন, একটা সাধারণ অপারেশন করতে হবে। তা হলেই আঙুলে আর কোনও সমস্যা হবে না। অপারেশনের জন্য সম্মতি জানায় ব্রিটনির বাড়ির লোক।

আরও পড়ুন-  পান্ডিয়া বনাম পান্ডিয়া লড়াই! দাদার কাছে ক্ষমাপ্রার্থনা হার্দিকের

অপারেশনের পর কাঁটা জায়গায় অদ্ভুতভাবে প্লাস্টার করে দেন চিকিতসকরা। তার পর ওই অবস্থাতেই ব্রিটনিকে বাড়ি যেতে বলা হয়। কিন্তু অপারেশনের একদিন পর থেকে আঙুলে প্রচণ্ড যন্ত্রণা শুরু হয় তার। ছয়দিন পর ফের হাসপাতালে আসে ব্রিটনি। প্লাস্টার খুলে দেখা যায়, আঙুলের অনেকটা অংশে পচন ধরেছে। পুরো আঙুলে কালচে দাগ হয়ে রক্ত জমাট বেঁধে রয়েছে। আঙুলের এমন অবস্থা দেখার পর চিকিতসকরা অনায়াসে বলে দেন, ''তোমার এই আঙুল আর রাখা যাবে না। কেটে বাদ দিতে হবে।'' ডাক্তারদের মুখে এমন কথা শুনে চমকে ওঠে ব্রিটনি ও তাঁর পরিবারের লোকজন। কিন্তু উপায় না দেখে আঙুল বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিতে হয়। বিপত্তির শেষ হয় না। বরং আরও বড় বিপদ হয় ব্রিটনির।

আরও পড়ুন-  পা দিয়ে ছবি আঁকেন! এমনই এক ভক্তের সঙ্গে বিশেষ উত্সব পালন করলেন সচিন তেন্ডুলকর

অস্ট্রেলিয়ার একাধিক মিডিয়ার রিপোর্ট বলছে, ব্রিটনির হাতের বুড়ো আঙুলের জায়গায় পায়ের বুড়ো আঙুল বসিয়ে দেন ডাক্তাররা। চিকিতসকদের এমন ভুলে, ঘটনার আকস্মিকতায় ও আঙুল হারানোর যন্ত্রণায় মানসিকভাবে ভেঙে পড়তে শুরু করেন ব্রিটনি। শরীরের আরেক অংশ থেকে মাংসপেশি তুলে অপারেশন করে তার পায়ের বুড়ো আঙুলের জায়গায় বসিয়ে দেন চিকিত্সকরা। ব্রিটনি বলছিল, ''লোকে আমাকে বলে তোমার হাতের আঙুলটা এমন কেন! আমি ওদের বলি এটা আমার হাতের নয় পায়ের আঙুল! শুনে সবাই আঁতকে ওঠে। আমি এখন আর ব্যাট গ্রিপ করতে পারি না। পায়ের আঙুল না থাকায় শরীরের ব্যালান্স বজায় রাখতেও সমস্যা হয়। ক্রিকেটার হওয়ার স্বপ্ন দেখতাম। আর সেই স্বপ্ন পূরণ হবে না।''